Breaking News

৮ম শ্রেণির গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ১ম অধ্যায় সৃজনশীল

৮ম শ্রেণির গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ১ম অধ্যায় সৃজনশীল: আসসালামু আলাইকুম, কেমন আছেন সবাই? আশা করি সবাই ভালো আছেন। আজকের আর্টিকেলে ৮ম শ্রেণির গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ১ম অধ্যায় সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর শেয়ার করা হবে। কথা না বাড়িয়ে তাহলে চলুন শুরু করি।

৮ম শ্রেণির গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ১ম অধ্যায় সৃজনশীল

প্রশ্ন ১। দরিদ্র পরিবারের ৮ম শ্রেণির মেধাবী ছাত্রী সুমি। নিজের পড়াশোনার পাশাপাশি প্রধান শিক্ষকের সহায়তায় স্কুলে কিছু পরীক্ষার খাতা স্বল্পমূল্যে কিনে ঠোঙ্গা বানায় এবং তা কয়েকটি দোকানে বিক্রি করে। তাছাড়া মার সাথে ঘরের সামনে খালি জায়গায় শাকসবজি চাষ করে। এতে তার পড়াশোনায় তেমন ক্ষতি হয় না। বরাবরই সে পরীক্ষায় প্রথম হয়। (৮ম শ্রেণির গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ১ম অধ্যায়)

ক. সম্পদ কী?
খ. শক্তির যথাযথ ব্যবহার ব্যাখ্যা করো।
গ. সুমি পরিবারের অভাব পূরণে কোন সম্পদের ব্যবহার করছে? ব্যাখ্যা করো।
ঘ. উদ্দীপকে সুমির কর্মকাণ্ডের পেছনে ইচ্ছাশক্তি ও সামাজিক সুবিধার ভূমিকা অপরিসীম-মূল্যায়ন করো।

১ নং প্রশ্নের উত্তর

ক। সম্পদ হলো চাহিদা পূরণের হাতিয়ার।

খ। শক্তির যথাযথ ব্যবহার বলতে বোঝায় শক্তিকে এমনভাবে ব্যবহার করা যেখানে সীমিত শক্তি দিয়ে অনেক কাজ করা যায়। এজন্য পরিকল্পনা করে শক্তি ব্যবহার করা উচিত। এতে করে কাজে অনীহা, ক্লান্তি ও বিরক্তির সৃষ্টি হয় না। (৮ম শ্রেণির গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ১ম অধ্যায়)

গ। পরিবারের অভাব মোচনে সুমি মানবীয় সম্পদের ব্যবহার করছে। দরিদ্র পরিবারের মেয়ে সুমি পরিবারের অভাব মোচনের জন্য শিক্ষকের সহায়তায় স্কুলের প্রীক্ষার খাতা কম মূল্যে কিনে ঠোঙ্গা বানিয়ে বিক্রি করে। দারিদ্রতা তাকে নিরাশ করতে পারে নি।

বরং সে তার আগ্রহ, দক্ষতা, বুদ্ধি, শক্তি, জ্ঞান ইত্যাদি মানবীয় সম্পদকে কাজে লাগিয়ে পরিবারের অর্থনৈতিক উন্নয়নে অবদান রেখে যাচ্ছে। এছাড়াও সে ঘরের সামনে শাকসবজি চাষে তার মাকে সাহায্য করে। যদিও মানবীয় সম্পদ দেখা বা পরিমাপ করা যায় না, তবে এর যথাযথ ব্যবহার দ্বারা লক্ষ্য অর্জন করা যায়। (৮ম শ্রেণির গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ১ম অধ্যায়)

সুমিও তাই তার পরিবারের অভাব মোচনে ছোট বয়সেই অংশগ্রহণ করছে। যদিও এর মাধ্যমে সামান্যই অর্থ উপার্জন সম্ভব তবুও সে তার মানবীয় সম্পদের যথাযথ ব্যবহারের মাধ্যমে কিছুটা হলেও পরিবারের অর্থনৈতিক উন্নয়ন ঘটাতে সক্ষম হচ্ছে।

আরও দেখুন  ৮ম শ্রেণির গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ৪র্থ অধ্যায় সৃজনশীল

ঘ। সুমি ৮ম শ্রেণির ছাত্রী। দরিদ্র পরিবারে তার জন্ম। সে লেখাপড়ার পাশাপাশি পরিবারের অর্থনৈতিক উন্নয়নে সক্রিয় অবদান রাখছে। সুমি তার মানবীয় সম্পদ তথা ইচ্ছাশক্তি, দক্ষতা, আগ্রহ, বুদ্ধি, জ্ঞান ইত্যাদিকে কাজে লাগিয়ে অর্থনৈতিকভাবে পরিবারকে সহায়তা করছে।

স্বল্পমূল্যে কাগজ কিনে ঠোঙ্গা বানিয়ে দোকানে বিক্রি করে সে অর্থ উপার্জন করছে। এ ক্ষেত্রে তার ইচ্ছাশক্তি, স্কুলের শিক্ষকের সহায়তা তাকে লক্ষ্য অর্জনের পথ সহজ করে দিয়েছে। অভাব, পরিশ্রম কোনোটিই সুমির চলার পথকে আটকাতে পারেনি। কারণ তার ইচ্ছাশক্তি ছিল প্রবল। শিক্ষকের সহায়তা তার কর্মকাণ্ডের ক্ষেত্রে সুফল বয়ে এনেছে। (৮ম শ্রেণির গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ১ম অধ্যায়)

তাছাড়া সুমি তার মাকে লেখাপড়ার পাশাপাশি শাকসবজি চাষে সহায়তা করে। এতে তার লেখাপড়ায় তেমন ক্ষতি হয় না। এমনকি প্রতিবারই সে পরীক্ষায় প্রথম হয়ে আসছে। এসকল দিক বিবেচনা করে বলা যায় যে, পরিবারের অর্থনৈতিক উন্নয়নে সুমির ইচ্ছাশক্তি ও সামাজিক সুবিধার ভূমিকা অপরিসীম।

প্রশ্ন ২। মিসেস নাভিদ চাকরিজীবী। ঘরের যাবতীয় দায়িত্ব পালন করেও তিনি সঠিক সময়ে অফিস করেন। এজন্য তিনি সব কাজে সময় পরিকল্পনা করে নেন। (৮ম শ্রেণির গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ১ম অধ্যায়)

ক. অর্থ পরিকল্পনার প্রধান কৌশল কোনটি?
খ. কীভাবে অর্থ পরিকল্পনা করা উচিত?
গ. মিসেস নাভিদ সময় তালিকা করার ক্ষেত্রে কী কী বিষয় বিবেচনায় আনবেন? ব্যাখ্যা করো।
ঘ. “সময় তালিকা করে চলেন বলে তিনি গৃহের সব দায়িত্ব পালন করতে পারেন”— উক্তিটির যথার্থতা বিচার করো।

২ নং প্রশ্নের উত্তর

ক। অর্থ পরিকল্পনার প্রধান কৌশল হলো বাজেট।

খ। পরিবারের সব সদস্যের প্রয়োজনীয়তার কথা বিবেচনা করে অর্থ পরিকল্পনা করা উচিত। এক্ষেত্রে পরিবারের সদস্যদের মতামত ও পছন্দের ক্ষেত্রে গুরুত্ব দিতে হবে। পরিকল্পনার মাধ্যমে অর্থ ব্যয় করলে পরিবারে অর্থ সংকট দেখা দেবে না। ফলে যে কোনো পরিস্থিতি সহজেই মোকাবিলা করা যাবে। (৮ম শ্রেণির গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ১ম অধ্যায়)

গ। মিসেস নাভিদ চাকুরিজীবী। তিনি সময় তালিকা অনুসরণ করে চলেন না। এই তালিকা তৈরির ক্ষেত্রে তাকে কিছু বিষয় বিবেচনা করতে হবে। এগুলো হলো- মিসেস নাভিদ দৈনিক করণীয় কাজগুলো আগে থেকে নির্ধারণ করে রাখবেন। গুরুত্ব অনুসারে তিনি কাজের অগ্রাধিকার দিবেন।

আরও দেখুন  ৮ম শ্রেণির গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ২য় অধ্যায় সৃজনশীল

যৌথভাবে কাজ করার সময় তিনি অন্যের সুবিধা-অসুবিধার দিকে লক্ষ রাখবেন। তিনি সময় তালিকায় বিশ্রাম, ঘুম ও অবসরের ব্যবস্থা রাখবেন। কোনো কঠিন বা ভারী কাজের পর তিনি হালকা কাজ করবেন বা বিশ্রাম নিবেন। তার সময় তালিকা নমনীয় হতে হবে, যাতে প্রয়োজনে পরিবর্তন করা যায়। (৮ম শ্রেণির গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ১ম অধ্যায়)

ঘ। সময় তালিকা করে চলেন বলে মিসেস নাভিদ গৃহের সব দায়িত্ব পালন করতে পারেন। উক্তিটি যথার্থ মানুষের জীবনে সময় এমনই এক সম্পদ, যা সবার জন্য সমান এবং সীমিত। এই সীমিত সম্পদের মধ্যে যে ব্যক্তি যত বেশি কাজ করে নিজেকে সময়ের সাথে সম্পৃক্ত করতে পারবে, সে তত বেশি সফলতা লাভ করবে।

মিসেস নাভিদ গৃহের যাবতীয় দায়িত্ব পালন করে আবার সঠিক সময়ে অফিস করেন। সময়কে যথাযথভাবে ব্যবহার করে তিনি ব্যক্তিগত, অর্থনৈতিক ও সামাজিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন। সময়ের সদ্ব্যবহারের জন্য প্রয়োজন সময়ের পরিকল্পনা করা। মিসেস নাভিদ তার সব কাজে সময় পরিকল্পনা করে নেন।

একদিনে তিনি কী কী কাজ করবেন, কখন করবেন, নির্দিষ্ট কাজে কতটুকু সময় ব্যয় করবেন ইত্যাদির সমন্বয়ে একটি লিখিত পরিকল্পনা বা সময় তালিকা করে নেন। এর ফলে তিনি করণীয় কাজ সম্পর্কে ধারণা পান এবং সময়মতো কাজ করার অভ্যাস গড়ে ওঠে। এতে তার কাজের দক্ষতা ও গতিশীলতা বৃদ্ধি পায়। এর মাধ্যমে তিনি বিশ্রাম, অবসর ও বিনোদনের সুযোগ পান। সুতরাং, মিসেস নাভিদ সময় তালিকা করে চলেন বলে গৃহের সব দায়িত্ব পালন করতে পারেন। (৮ম শ্রেণির গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ১ম অধ্যায়)

প্রশ্ন ৩। সায়মা ও আজাদ সদ্য বিবাহিত দম্পতি। দু’জনেই চাকরি করে। দুজনের মোট মাসিক আয় ৩০,০০০ টাকা। সায়মা এ অর্থ যথাযথভাবে ব্যবহার করে প্রতিমাসে বাজেট তৈরি করে; যা উদ্বৃত্ত বাজেট। এ ব্যাপারে আজাদ বিরক্ত হলে সায়মা তাকে বাজেট করার প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে বুঝালো। (৮ম শ্রেণির গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ১ম অধ্যায়)

ক. কোন বাজেট আমাদের কাম্য নয়?
খ. শ্রমলাঘব সরঞ্জাম বলতে কী বোঝ?
গ. সায়মা যে বাজেট করেছে তা ব্যাখ্যা করো।
ঘ. উদ্দীপকে আলোচিত বিষয়ের প্রয়োজনীয়তা বিশ্লেষণ করো।

আরও দেখুন  ৮ম শ্রেণির গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ৫ম অধ্যায় সৃজনশীল

৩ নং প্রশ্নের উত্তর

ক। ঘাটতি বাজেট আমাদের কাম্য নয়।

খ। যেসব সরঞ্জাম ব্যবহার করে আমরা সময় ও শক্তি সাশ্রয়ের মাধ্যমে দৈনন্দিন কাজগুলো সম্পন্ন করতে পারি সেগুলোকে শ্রম লাঘব সরঞ্জাম বলে। যেমন- ব্লেন্ডার, রাইস কুকার ইত্যাদি। (৮ম শ্রেণির গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ১ম অধ্যায়)

গ। সায়মার পরিবারের আয় সামান্য। এই সামান্য অর্থই সায়মা যথাযথভাবে খরচ করে। প্রতিমাসেই সে বাজেট করে চলে। এটি উদ্বৃত্ত বাজেট। এই বাজেটই সবচেয়ে ভালো। এতে পরিবারের সব খরচ মেটাবার পরও কিছু অর্থ উদ্বৃত্ত থেকে যায়। এই উদ্বৃত্ত অর্থ দিয়ে আরও চাহিদা পূরণ করা যায়। আবার অর্থ সঞ্চয় করেও রাখা যায়। বাজেট করার আগে পারিবারিক লক্ষ্য স্থির করে নিতে হয়। উপার্জনকারী ব্যক্তিদের মোট আয় নিরূপণ করে নিতে হয়।

খরচের খাত নির্ধারণ করার সময় জীবনধারণের জন্য অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে খাতগুলো সাজাতে হয়। যেমন- খাদ্য, বস্ত্র, বাসস্থান, চিকিৎসা, শিক্ষা, সঞ্চয়, বিনোদন ইত্যাদি। কোনো অবস্থাতেই প্রাপ্ত অর্থের চেয়ে বেশি ব্যয়ের পরিকল্পনা করা যাবে না। দরকার হলে কম প্রয়োজনীয় চাহিদাগুলো বাদ দিতে হবে। (৮ম শ্রেণির গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ১ম অধ্যায়)

বাজেট মূল্যায়ন করে দেখতে হবে এটি কতটুকু ফলপ্রসূ। সায়মা এভাবে সব দিক লক্ষ রেখেই তার বাজেট করে। ফলে সীমিত আয়ে সে তার চাহিদাগুলো পূরণ করতে পারে।

ঘ। সায়মা বাজেট তৈরি করে প্রতি মাসে টাকা খরচ করে। এ ব্যাপারে তার স্বামী আজাদ বিরক্ত হয়। বিরক্তি দূর করার জন্য সায়মা আজাদকে বাজেটের প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে বলে। এগুলো হলো- বাজেট করলে পরিবারের আয়-ব্যয় সম্পর্কে ধারণা হয়। আয় ও ব্যয়ের মধ্যে সমতা রক্ষা করা যায়।

বাজেটে সঞ্চয়ের খাত থাকাতে পরিবার সঞ্চয় করতে পারে। বাজেটের সাহায্যে পরিবারের গুরুত্বপূর্ণ চাহিদাগুলো অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পূরণ করা সম্ভব হয়। বাজেট অর্থের অপচয় রোধ করে, সচ্ছলতা আনতে সাহায্য করে। বাজেট পরিবারের সদস্যদের মিতব্যয়ী হতে শেখায়। (৮ম শ্রেণির গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ১ম অধ্যায়)

আশাকরি আমাদের আজকের আর্টিকেল টি আপনাদের ভালো লেগেছে। শিক্ষা বিষয়ক সকল ধরণের আর্টিকেল পেতে আমাদের সাথেই থাকুন। ভালো থাকবেন সবাই, ধন্যবাদ।

About মেরাজুল ইসলাম

শিক্ষা মেলা একটি শিক্ষা মূলক ওয়েবসাইট। এখানে নিন্ম মাধ্যমিক, মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক সহ সকল শ্রেণির সাজেশন, প্রশ্নোত্তর ও আর্টিকেল শেয়ার করা হয়।

Check Also

৮ম শ্রেণির গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ২য় অধ্যায়

৮ম শ্রেণির গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ২য় অধ্যায় সৃজনশীল

৮ম শ্রেণির গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ২য় অধ্যায় সৃজনশীল: আসসালামু আলাইকুম, কেমন আছেন সবাই? আশা করি সবাই …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *