Breaking News

নবম-দশম গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ২য় অধ্যায় সৃজনশীল

নবম-দশম গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ২য় অধ্যায় সৃজনশীল: আসসালামু আলাইকুম, কেমন আছেন সবাই? আশা করি সবাই ভালো আছেন। আজকের আর্টিকেলে নবম-দশম গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ২য় অধ্যায় সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর শেয়ার করা হবে। কথা না বাড়িয়ে তাহলে চলুন শুরু করি।

নবম-দশম গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ২য় অধ্যায় সৃজনশীল

প্রশ্ন ১। রাফির বয়স এবার ১৯ হয়েছে। সে জীবনে প্রথম তার বড় ভাই রানার উৎসাহে একজন রোগীকে রক্তদান করেছে। বড় ভাইয়ের অনুপ্রেরণায় সেও রেড ক্রিসেন্টে যোগ দিয়েছে। এই সংস্থার নানা কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ করে তারা দুই ভাই আর্তমানবতার সেবায় নিয়োজিত থাকে। পরিবারের এবং বাইরের লোকজন তাদের খুবই প্রশংসা করে। (নবম-দশম গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ২য় অধ্যায়)

ক. কোন গুণটি থাকলে গৃহ ব্যবস্থাপক আগ্রহ ও আনন্দের সাথে যেকোনো কাজ করবে?
খ. গৃহ ব্যবস্থাপকের দায়িত্ব ও কর্তব্যগুলো কী কী? ব্যাখ্যা করো।
গ. রাফির কর্মকাণ্ডে’গৃহ ব্যবস্থাপকের কোন গুণটি ফুটে উঠেছে? ব্যাখ্যা করো।
ঘ. উদ্দীপকে উল্লিখিত তাদের দুই ভাইয়ের উৎসাহে কোন ধরনের দায়িত্ববোধ ফুটে উঠেছে? উদ্দীপকের আলোকে মূল্যায়ন করো।

১ নং প্রশ্নের উত্তর

ক। উদ্দীপনা গুণটি থাকলে গৃহ ব্যবস্থাপক আগ্রহ ও আনন্দের সাথে যেকোনো কাজ করবে।

খ। গৃহকে সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা করার জন্য একজন গৃহব্যবস্থাপককে বেশ কিছু দায়িত্ব ও কর্তব্য পালন করতে হয়। গৃহ ব্যবস্থাপকের দায়িত্ব ও কর্তব্যগুলো হলো- গৃহে সুষ্ঠু কর্মব্যবস্থা সৃষ্টি করা। পরিবারের আয় ও ব্যয়ের সুব্যবস্থা নিশ্চিত করা। পরিবারের সদস্যদের সাথে সুসম্পর্ক বজায় রাখা। পরিবারের সুষ্ঠু নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করা। পরিবারের সদস্যদের মধ্যে সুষ্ঠু ভোগ আচরণ গড়ে তোলা। কাজের উপযুক্ত পরিবেশ বজায় রাখা। (নবম-দশম গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ২য় অধ্যায়)

গ। রাফির কর্মকাণ্ডে গৃহ ব্যবস্থাপকের উদ্দীপনা গুণটি ফুটে উঠেছে। গৃহ ব্যবস্থাপকের একটি বিশেষ গুণ হলো উদ্দীপনা। উৎসাহ উদ্দীপনা ছাড়া কোনো কাজেই সফলতা আসে না। যখন যে কাজের প্রয়োজন দেখা দেয়, তখন সে কাজের গুরুত্ব সম্বন্ধে বিশ্বাস রেখে নিষ্ঠার সাথে কাজটি সম্পন্ন করার চেষ্টাকেই উৎসাহ ও উদ্দীপনা বলা হয়। গৃহ ব্যবস্থাপকের এই গুণটি অন্য সদস্যের মধ্যে সঞ্চারিত হয়ে যায়। উদ্দীপনা থাকলে আগ্রহ ও আনন্দের সাথে সব কাজ সম্পন্ন করা যায়। আবার দেখা যায়, উৎসাহ উদ্দীপনার অভাবে অনেক পরিকল্পনা বাস্তবায়িত হয় না। ফলে লক্ষ্য অর্জনও সম্ভব হয় না।

রাফির বয়স ১৯ বছর। সে জীবনে প্রথম তার ভাই রানার উৎসাহে একজন রোগীকে রক্তদান করে। ভাই এর অনুপ্রেরণায় সে রেড ক্রিসেন্টে যোগ দেয়। রাফির এ সকল কর্মকাণ্ড গৃহব্যবস্থাপকের উদ্দীপনা গুণের সাথে সাদৃশ্যপূর্ণ। তাই বলা যায়, রাফির কর্মকাণ্ড উদ্দীপনা গুণকেই নির্দেশ করছে। (নবম-দশম গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ২য় অধ্যায়)

আরও দেখুন  নবম-দশম ভূগোল ও পরিবেশ ১ম অধ্যায় সৃজনশীল

ঘ। উদ্দীপকে উল্লিখিত দুই ভাইয়ের কর্মকাণ্ডে সামাজিক দায়িত্ব ও কর্তব্যবোধ ফুটে ওঠে। পরিবারের মাধ্যমে সদস্যরা সামাজিক রীতিনীতি, মতাদর্শ ও সামাজিক মূল্যবোধের শিক্ষা পায় এবং সামাজিকভাবে গড়ে ওঠে। বিভিন্ন সামাজিক কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ করে তারা সমাজ উন্নয়নমূলক কাজে অবদান রাখতে পারে। যেমন- লিওক্লাব, গার্লস গাইড, রেড ক্রিসেন্ট ইত্যাদিতে সম্পৃক্ত হয়ে বিভিন্ন দুর্যোগকালীন আর্তমানবতার সেবায় নিয়োজিত হওয়া যায়। (নবম-দশম গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ২য় অধ্যায়)

একজন গৃহ ব্যবস্থাপক তার পরিবারের সদস্যদের শিষ্টাচার, আদর্শ, মূল্যবোধ শিক্ষাদানের মাধ্যমে পরিবারের সদস্যদের সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তোলেন। তিনি পরিবারের সদস্যদের পরস্পরের প্রতি শ্রদ্ধাবোধ, স্নেহ, ভালোবাসা শিক্ষাদানের পাশাপাশি প্রতিবেশিদের প্রতি দায়িত্ববোধ, সামাজিক আচার অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণে আগ্রহী করে তোলেন। যেমন- বিয়ে, জন্মদিন, মিলাদ, ঈদ, পূজা, বড়দিন, মৃত্যুবার্ষিকী, অসহায় ও দুস্থদের সাহায্য করা ইত্যাদি। এছাড়া গৃহ ব্যবস্থাপক জাতি, জাতীয় অনুষ্ঠান, নাগরিক অধিকার ও কর্তব্য সম্পর্কে তার পরিবারের সদস্যদের শিক্ষাদানের মাধ্যমে দায়িত্বশীল নাগরিক হিসেবে গড়ে তোলেন।

উদ্দীপকে রাফি ও রানা দুই ভাই রেড ক্রিসেন্ট সংস্থার সাথে সম্পৃক্ত। তারা রক্তদানসহ সংস্থাটির নানা কর্মকাণ্ডের সাথে জড়িত। এসকল কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে তারা আর্তমানবতার সেবায় নিয়োজিত থাকছে। তাদের এসকল কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে তারা সমাজের প্রতি তাদের দায়িত্ব ও কর্তব্য পালন করে যাচ্ছে। (নবম-দশম গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ২য় অধ্যায়)

প্রশ্ন ২। অন্তু স্কুল থেকে ফিরে তার মাকে কাজে সাহায্য করে। সে তার পরিবারের সদস্যদের সাথে সুসম্পর্ক ও পরিবারের সুষ্ঠু নিরাপত্তা ব্যবস্থার ব্যাপারে বেশি আগ্রহী। তার মা তাকে পারিবারিক অন্যান্য দায়িত্ব ও কর্তব্যগুলো সম্পর্কে সচেতন হতে বললেন। তিনি বলেন, পারিবারিক দায়িত্ব ও কর্তব্যগুলো সুষ্ঠুভাবে পালন করলে পরিবারে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হবে না। (নবম-দশম গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ২য় অধ্যায়)

ক. যেকোনো পরিস্থিতিতে নিজেকে মানিয়ে নেওয়ার ক্ষমতা, থাকবে কার?
খ. সুব্যবস্থাপকের কেন আত্মসংযমী হওয়া প্রয়োজন?
গ. পারিবারিক দায়িত্বের মধ্যে অন্ত কোন দায়িত্বগুলোর ব্যাপারে আগ্রহী? ব্যাখ্যা করো।
ঘ. পারিবারিক বিশৃঙ্খলা রোধে অন্তুর মায়ের মন্তব্যটি বিশ্লেষণ করো।

২ নং প্রশ্নের উত্তর

ক। যেকোনো পরিস্থিতিতে নিজেকে মানিয়ে নেওয়ার ক্ষমতা থাকবে গৃহ ব্যবস্থাপকের।

খ। একজন সুব্যবস্থাপকের আত্মসংযমী হওয়া একান্ত প্রয়োজন। আত্মসংযম গুণের মাধ্যমে অনেক কঠিন সমস্যা সমাধান করা যায়। পরিবারের সদস্যদের ভুল বোঝাবুঝির অবসান ঘটিয়ে শান্তি ফিরিয়ে আনতে সুব্যবস্থাপকের আত্মসংযমী হওয়া প্রয়োজন।

গ। অন্তু পারিবারিক দায়িত্বের মধ্যে পরিবারের সদস্যদের সাথে সুসম্পর্ক ও পরিবারের সুষ্ঠু নিরাপত্তা ব্যবস্থার ব্যাপারে বেশি আগ্রহী।

আরও দেখুন  নবম-দশম গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ১ম অধ্যায় সৃজনশীল

পরিবারে বিভিন্ন বয়স ও সম্পর্কের সদস্যরা অবস্থান করে। গৃহ ব্যবস্থাপনার সাথে একাধিক কাজ সম্পৃক্ত থাকে। পরিবারের সব সদস্যের মিলিত প্রচেষ্টায় কাজগুলো সম্পন্ন হয়। অত্তুর পরিবারের সদস্যদের মধ্যে সম্পর্ক যদি ভালো হয়, তাহলে সেখানে সুশৃঙ্খল ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বিরাজ করবে। সে পরিবারের সার্বিক নিরাপত্তার ব্যাপারে বিশেষভাবে যত্নবান। গৃহ ও গৃহের সদস্যদের নিরাপত্তা, ময়লা আবর্জনা যথাস্থানে অপসারণ করা, গৃহকে দূষণমুক্ত রাখা ইত্যাদি গৃহের সার্বিক নিরাপত্তা বিধানে সে সচেষ্ট। (নবম-দশম গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ২য় অধ্যায়)

বাড়িতে সদস্যরা কোনো দুর্ঘটনায় পড়লে তাকে সাময়িক আরাম দেওয়ার জন্য প্রাথমিক চিকিৎসার ব্যবস্থাও সে করে থাকে। এভাবেই অন্তু পারিবারিক দায়িত্বের মাধ্যমে পরিবারের সদস্যদের মধ্যে সুসম্পর্ক ও পরিবারের সুষ্ঠু নিরাপত্তার ব্যাপারে সচেতন।

ঘ। অন্তুর মা বলেন পারিবারিক দায়িত্ব ও কর্তব্যগুলো সুষ্ঠুভাবে পালন করলে পরিবারে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হবে না। একজন গৃহ ব্যবস্থাপক তার করণীয় কাজগুলো সম্পর্কে সচেতন হয়ে তার গুণাবলির প্রকাশ ঘটাতে পারেন। তার দায়িত্ব ও কর্তব্য পালনের ক্ষেত্রে তাকে সবসময় সচেষ্ট থাকতে হয়। (নবম-দশম গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ২য় অধ্যায়)

গৃহ ব্যবস্থাপকের দায়িত্ব ও কর্তব্যে সামান্য অবহেলার কারণে পারিবারিক জীবনে অনেক বিপর্যয় ঘটতে পারে। পরিবারের ছোটখাটো কাজ থেকে বড় রকমের বিভিন্ন গুরু দায়িত্ব পালনের ভারও গৃহ ব্যবস্থাপকের ওপর ন্যস্ত থাকে। তার সঠিক নির্দেশনা পেলে অন্যান্য সদস্যরাও কাজে আগ্রহী হয়ে ওঠে। গৃহ ব্যবস্থাপককে সহযোগিতা করা প্রত্যেক সদস্যের কর্তব্য।

সুতরাং, যদি গৃহ ব্যবস্থাপক পারিবারিক দায়িত্ব ও কর্তব্যগুলো সুষ্ঠুভাবে পালন করেন তাহলে পরিবারে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হবে না।

প্রশ্ন ৩। যুথি যৌথ পরিবারের একজন দায়িত্বপরায়ণ সদস্য। সে তার পরিবারের সদস্যদের মধ্যে তাদের বয়স ও যোগ্যতা অনুসারে কর্মবণ্টন করে। এতে তার পরিবারের কোনো কাজই অবহেলায় পরে থাকে না। সময় পেলে তিনি নিজেও অন্যান্যদের কাজে সাহায্য করেন। (নবম-দশম গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ২য় অধ্যায়)

ক. অভিযোজ্যতা কী?
খ. আত্মসংযম বলতে কী বোঝায়?
গ. একজন ব্যবস্থাপক হিসেবে যুথির বুদ্ধিমত্তা প্রকাশের ধারাটি “বর্ণনা করো।
ঘ. যুথির পারিবারিক সাফল্যের পিছনে কোন কারণটি অধিক গুরুত্বপূর্ণ বলে তুমি মনে করো? উদ্দীপকের আলোকে বিশ্লেষণ করো।

৩ নং প্রশ্নের উত্তর

ক। যেকোনো পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে নিজেকে খাপ খাইয়ে নেওয়াই অভিযোজ্যতা।

খ। পারিবারিক সংকটকালে নিজের আবেগকে নিয়ন্ত্রণে রাখাটাই আত্মসংযম। স্বাভাবিকভাবে জীবন চলার মাঝে বিভিন্ন রকম সমস্যা দেখা দিতে পারে। একজন সুব্যবস্থাপকের আত্মসংযমী হওয়া একান্ত প্রয়োজন। এই গুণের মাধ্যমে কঠিন সমস্যার সমাধান করা যায়। আত্মসংযমের ক্ষমতা থাকলে পরিবারের সদস্যদের মধ্যে সুসম্পর্ক বজায় থাকে।

আরও দেখুন  নবম-দশম গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ৩য় অধ্যায় সৃজনশীল

গ। একজন গৃহ ব্যবস্থাপককে কতগুলো গুণের অধিকারী হতে হয়। বুদ্ধিমত্তা গৃহ পরিচালকের একটি অন্যতম গুণাবলি। একজন গৃহ ব্যবস্থাপককে অবশ্যই বুদ্ধিমান হতে হয়। ব্যক্তির পর্যবেক্ষণ ক্ষমতা, পারিপার্শ্বিক অবস্থা বিবেচনা, জ্ঞানস্পৃহা ইত্যাদি তার বুদ্ধিমত্তার পরিচয় দেয়। (নবম-দশম গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ২য় অধ্যায়)

কোনো সমস্যাকে অনুধাবন করে পরিস্থিতির বিচার-বিশ্লেষণ করা, বিগত দিনের কোনো অভিজ্ঞতাকে সময়মতো কাজে লাগানো এ সবই বুদ্ধির ওপর নির্ভরশীল। পারিবারিক বিভিন্ন কর্মকাণ্ডকে সফল করার জন্য ব্যবস্থাপককে অবশ্যই বুদ্ধিমান হতে হবে। গৃহের সৌন্দর্য বর্ধনে, শৃঙ্খলা আনয়নে, যেকোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণে বুদ্ধিমত্তার প্রয়োজন। ব্যবস্থাপক তার বুদ্ধির জোরে পরিবারের সীমিত সম্পদ ব্যবহার করেও সব চাহিদা পূরণ করতে পারে। যুথি যৌথ পরিবারের গৃহ ব্যবস্থাপক।

তিনি পরিবারের সদস্যদের তাদের বয়স ও যোগ্যতা অনুযায়ী কাজ ভাগ করে দেন। ফলে তার পরিবারের কোনো কাজ অসমাপ্ত অবস্থায় থাকে না। তিনি শুধু পরিবারের সদস্যদের কাজ ভাগ করেই দেন না, নিজেও তাদের কাজে সাহায্য করেন। উল্লিখিত কাজগুলোর মাধ্যমে যুথির বুদ্ধিমত্তা প্রকাশ পায়। (নবম-দশম গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ২য় অধ্যায়)

ঘ। যুথির পারিবারিক সাফল্যের পিছনে কাজের সুষ্ঠু বণ্টন কারণটি অধিক গুরুত্বপূর্ণ বলে আমি মনে করি। গৃহ ব্যবস্থাপক যদি পরিবারের প্রতিটি সদস্যদের যোগ্যতার ভিত্তিতে দায়িত্ব ও কর্তব্য বণ্টন করে দেন তবে তা সবার জন্যই মঙ্গলজনক হবে।

যৌথ পরিবারের সদস্যদের অনেক দায়িত্ব ও কর্তব্য পালন করতে হয়। সদস্যদের এরূপ দায়িত্ব-কর্তব্য পালনের ক্ষেত্রে নানা ধরনের সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে। এক্ষেত্রে পরিবারের কোনো সদস্যদের দায়িত্ব এড়িয়ে যাওয়ার প্রবণতা থাকতে পারে। কেউ আবার তার দায়িত্ব সময়মতো পালন করার ক্ষেত্রে সচেতন, নাও থাকতে পারে।

আবার কাউকে ক্ষমতার অতিরিক্ত দায়িত্ব অর্পণ করলে সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে। এরূপ প্রেক্ষাপটে একজন গৃহ ব্যবস্থাপকের ভূমিকা সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। আবার শুধু দায়িত্ব বণ্টন করে দিলেই হবে না, সেই সাথে সুষ্ঠু তদারকি এবং সহযোগিতাও প্রয়োজন। যুথি এ কাজগুলোই করে থাকেন অত্যন্ত দায়িত্বশীলতার সাথে। (নবম-দশম গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ২য় অধ্যায়)

তাই তার পরিবারে সাফল্য অর্জিত হয়। তার পরিবারের এ সাফল্যের মূল কারণ হলো যথাযথ গৃহ ব্যবস্থাপনা । এক্ষেত্রে উপযুক্ত জ্ঞান, দক্ষতা ও যোগ্যতা তার কর্মক্ষেত্রে সহায়ক ভূমিকা পালন করেছে।

আশাকরি আমাদের আজকের আর্টিকেল টি আপনাদের ভালো লেগেছে। শিক্ষা বিষয়ক সকল ধরণের আর্টিকেল পেতে আমাদের সাথেই থাকুন। ভালো থাকবেন সবাই, ধন্যবাদ।

About মেরাজুল ইসলাম

শিক্ষা মেলা একটি শিক্ষা মূলক ওয়েবসাইট। এখানে নিন্ম মাধ্যমিক, মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক সহ সকল শ্রেণির সাজেশন, প্রশ্নোত্তর ও আর্টিকেল শেয়ার করা হয়।

Check Also

নবম-দশম গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ৩য় অধ্যায়

নবম-দশম গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ৩য় অধ্যায় সৃজনশীল

নবম-দশম গার্হস্থ্য বিজ্ঞান ৩য় অধ্যায় সৃজনশীল: আসসালামু আলাইকুম, কেমন আছেন সবাই? আশা করি সবাই ভালো …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *